সোমবার , ৮ এপ্রিল ২০২৪ | ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. London Mirror Specials
  2. অন্যান্য
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খুলনা
  6. খেলাধুলা
  7. চট্রগ্রাম
  8. জেলার খবর
  9. ঢাকা
  10. তথ্য-প্রযুক্তি
  11. প্রবাসের কথা
  12. বরিশাল
  13. বাংলাদেশ
  14. বিনোদন
  15. ব্যাবসা-বাণিজ্য

ব্রিকসে যুক্ত হতে বাংলাদেশকে সমর্থন দেবে ব্রাজিল

প্রতিবেদক
Newsdesk
এপ্রিল ৮, ২০২৪ ১:০৭ পূর্বাহ্ণ

ব্রিকসের সদস্য পদ পেতে বাংলাদেশের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছে ব্রাজিল। ঢাকা সফররত দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাউরো ভিয়েরা বলেছেন, ব্রাজিলের পক্ষ থেকে ব্রিকসে বাংলাদেশের সদস্য পদ পেতে দৃঢ় সমর্থন দেওয়া হবে।

রোববার (৭ এপ্রিল) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন যমুনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শেষে ব্রিকসে বাংলাদেশের যুক্ত হওয়া নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এমন আশ্বাস দেন ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

মাউরো ভিয়েরা বলেন, ব্রিকসে নতুন করে সদস্য পদ বাড়ানোর পর এ বছর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের প্রথম বৈঠক হবে। নীতিগত এবং অবস্থান বিবেচনায় বাংলাদেশ আমাদের ঘনিষ্ঠ। আমরা বাংলাদেশের সদস্য পদের বিষয়টি বিবেচনা করব। ব্রাজিলের পক্ষ থেকে দৃঢ় ও ইতিবাচক ভূমিকা রাখা হবে।

গত বছরের (২০২৩) আগস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে ১৫তম ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনে বিকাশমান পাঁচ অর্থনীতির দেশের জোট ব্রিকসের সদস্য সংখ্যা বাড়ানোর ঘোষণা আসে। নতুন করে পাঁচটি দেশ এ জোটের সদস্যপদ পেয়েছে। দেশগুলো হলো- সৌদি আরব, ইরান, মিসর, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইথিওপিয়া। সব মিলিয়ে ব্রিকস এখন ১০ সদস্যের একটি জোট।

জোহানেসবার্গের সেই ব্রিকস সম্মেলনের আগে ‘বাংলাদেশ ব্রিকসে যুক্ত হচ্ছে’- এমন খবর ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু সম্মেলন থেকে বাংলাদেশের নাম ঘোষিত হয়নি। বন্ধুরাষ্ট্র ভারত, চীন ও রাশিয়া থাকার পরও কেন বাংলাদেশ জোটটির সদস্য পদ পেল না, তা নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে।

সফররত ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গ্লোবাল সাউথের একটি বলিষ্ঠ কণ্ঠ হিসেবে বাংলাদেশ বিভিন্ন ইস্যুতে ব্রিকসে অবদান রাখতে সক্ষম। এছাড়া তিন দেশীয় ইন্ডিয়া, ব্রাজিল ও সাউথ আফ্রিকা (ইবসা ফোরাম) ফোরামে যুক্ত হওয়ার বিষয়ে বাংলাদেশ আগ্রহ প্রকাশ করেছে। ব্রাজিল এটাকে স্বাগত জানায় এবং আমরা এ বিষয়ে অন্য দুই সদস্য রাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা করব।

ভিয়েরা বলেন, ব্রাজিলের প্রথম পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে বাংলাদেশে আসা আমার জন্য সম্মানের। গত এক দশকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে সামাজিক ও অর্থনৈতিক গুরত্বপূর্ণ পরিবর্তন হয়েছে। অনেক ইস্যু আছে যেখানে আমরা একসঙ্গে কাজ করতে পারি। বিশেষ করে, শিক্ষা, কৃষি, বাণিজ্য। আমরা আজকে কারিগরি সহযোগিতা সংক্রান্ত একটি চুক্তি করেছি, যে ফ্রেমওয়ার্কের আওতায় আমরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে একসঙ্গে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। আমরা বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের ব্রাজিলে বৃত্তি নিয়ে পড়তে যাওয়ার অফার করেছি।

যোগ্য নেতৃত্বের কারণে আবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসেছেন বলে মন্তব্য করেন ভিয়েরা।

হাছান মাহমুদ বলেন, ৫২ বছরের মধ্যে এটি ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রথম বাংলাদেশ সফর। তৈরি পোশাকে শুল্কমুক্ত সুবিধা দিতে তাকে বলেছি। আমাদের অর্থনৈতিক অঞ্চলে ব্রাজিলের বিনিয়োগের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, আইটি সেক্টরে বিনিয়োগ নিয়ে আলোচনা করেছি। ব্রাজিলে ওষুধ ও সিরামিকস পণ্য রপ্তানি নিয়ে আলোচনা করেছি। ব্রিকসে বাংলাদেশের যুক্ত হওয়া নিয়ে আলোচনা করেছি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ব্রাজিলে বৃত্তির অফার করায় তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছি। আমরা ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে দুজন ব্রাজিলিয়ান ট্রেইনি ডিপ্লোমেটকে ট্রেনিং করার অফার করেছি। আমরা অনেক ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেছি, দ্বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক ইস্যু নিয়ে বিশেষ করে, গাজা নিয়ে আলোচনা করেছি। রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেছি এবং তাদের সমর্থন চেয়েছি। আমরা আশা করছি, বিশ্ব সম্প্রদায় মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগ করবে এবং মিয়ানমার তাদের লোকদের ফিরিয়ে নেবে।

এদিকে, দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পরিবহন খাতে বায়ো-ফুয়েলসহ অন্যান্য কম দূষণীয় জ্বালানির ব্যবহার উৎসাহিত করার জন্য বাংলাদেশ ও ব্রাজিল পরস্পর সহযোগিতা, গবেষণা ও বিনিয়োগ করতে সম্মত হয়েছে। একইসঙ্গে ঢাকায় ব্রাজিলের বিশেষজ্ঞদের নিয়ে ইথানল সংলাপ করার জন্য বাংলাদেশের আগ্রহকে স্বাগত জানিয়েছে ব্রাজিল।

জ্বালানি নিরাপত্তার গুরুত্বকে বিবেচনায় নিয়ে উভয় দেশ জ্বালানি খাতে দূষণ কমানো এবং জ্বালানি রূপান্তরের বিষয়কে দুই দেশ স্বীকার করে নেয় বলে বিবৃতিতে জানানো হয়।

দক্ষিণ আমেরিকার বাণিজ্য সংগঠন মারকোসর এবং বাংলাদেশের মধ্যে অগ্রাধিকার বাণিজ্য চুক্তি সম্পাদনের জন্য আলোচনা শুরু করার বিষয়ে একসঙ্গে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে উভয়পক্ষ।

দুই দিনের সফরে রোববার সকালে ঢাকায় আসেন ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। স্বাধীন দেশ হিসেবে বাংলাদেশের আত্মপ্রকাশের পর এই প্রথম কোনো ব্রাজিলিয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় এলেন। বিমানবন্দরে ভিয়েরাসহ তার সঙ্গে থাকা বড় একটি প্রতিনিধিদলকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন।

এরপর ধানমন্ডির ৩২ নাম্বারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানোর পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করেন ভিয়েরা। পরে রাজধানীর একটি হোটেলে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটুর সঙ্গে বৈঠক করেন ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ব্রাজিলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। এদিন তিনি ঢাকা ছেড়ে যাবেন।

সর্বশেষ - খেলাধুলা