All Postজেলার খবর

সকালের বৃষ্টিতে ঢাকার বিভিন্ন সড়কে জলাবদ্ধতা

প্রায় দুই ঘণ্টার বৃষ্টিতে রাজধানীর মিরপুর ১৪, ১০, ১১, ১২ ও ২ নম্বর এলাকার রাস্তায় পানি জমেছে। এছাড়াও কাজীপাড়া, শেওড়াপাড়া, কালশী রোডেসহ ধানমন্ডি ২৭ এলাকার সড়কে দেখা গেছে জলাবদ্ধতা।

কিছু কিছু এলাকার সড়কে হাঁটুপনি জমে গেছে। এমন পরিস্থিতিতে সকাল থেকেই সাধারণ মানুষ পড়েছেন ভোগান্তিতে। অফিসগামী ও কর্মজীবী মানুষ সঠিক সময়ে কর্মস্থলে পৌঁছতে পারেননি।

শনিবার (১১ মে) সকাল ৭টার পর থেকে রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক ও এলাকায় এমন চিত্র দেখা যায়।

এদিন মিরপুর ১৪, ১৩, ১২, ১১, ১০, ২ নম্বর ও ধানমন্ডি এলাকায় পানি জমতে দেখা যায়। পল্লবী থানা এলাকায় কালশী রোডে পানি জমেছে কোথাও বুক পানি, আবার কোথাও জমেছে হাঁটু পানি। বৃষ্টিতে বেশিরভাগ অফিসগামী মানুষই ভোগান্তিতে পড়েন। কালশী রোডের ২২ তলা গার্মেন্টসের সামনে বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হলে চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় অনেক নারী-পুরুষকে ছাতি মাথায় এই জলাবদ্ধতা পার হতে দেখা গেছে।

চাকুরিজীবী কালশী এলাকার বাসিন্দা তানজিদ ভুঁইয়া বলেন, বৃষ্টির মধ্যে সকাল ৮টার সময় বাসা থেকে বের হয়েছি অফিসে যাওয়ার উদ্দেশ্যে। কিন্তু বৃষ্টির কারণে কালশী রোডে পানি জমে গেছে। এই রোডে এক ঘণ্টার বেশি সময় ধরে পানি জমে আছে। আমিসহ অনেকেই অফিসে যেতে পারছেন না। পানি জমে থাকার কারণে এখানে যান চলাচল ও করতে পারছে না। হেঁটে যেতে চেয়েছিলাম কিন্তু কালশী রোডে কোমর সমান পানি। আবার কোথাও কোথাও বুক সমান পানি জমেছে।

রাজধানীর সাংবাদিক আবাসিক এলাকার বাসিন্দা ফখরুদ্দিন আহমেদ টিপু  বলেন, সকাল সাড়ে ৮টায় আমার অফিসে যাওয়ার কথা ছিল। বৃষ্টির কারণে যেতে পরিনি। আমাদের এলাকার বৃষ্টিতে পানি জমলেও কখনও আমার বাসার সামনে পানি ওঠে না। কিন্তু আজ এখানেও পানি জমেছে। প্রায় দুই ঘণ্টার বৃষ্টিতেই এই অবস্থা। আজ আমার অফিস যেতে দেরি হবে।

এদিকে সকাল সকাল কাজে বের হওয়া অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি ভিডিওসহ জলাবদ্ধতার কারণে নিজেদের ভোগান্তির কথা তুলে ধরে পোস্ট করেছেন। সেই পোস্টগুলোতেও বিভিন্নজন বিভিন্ন এলাকার কথা উল্লেখ করেছেন।

এ সর্ম্পকিত সংবাদ

Back to top button